Ads By Blogger

Monday, August 19, 2019

pendrive এর space ঠিক আছে তো?

bd tips tech এ আপনাদেরকে স্বাগতম।আশাকরি সবাই ভাল আছেন।

এক কম্পিউটার থেকে আরেক কম্পিউটারে দ্রুত তথ্য আদান-প্রদানের একটি মাধ্যম পেনড্রাইভ। অনেক সময় পেনড্রাইভে থাকা জায়গার পরিমাণ সঠিক দেখায় না। অর্থাৎ পেনড্রাইভের ধারণক্ষমতা হয়তো ৮ গিগাবাইট, কিন্তু দেখাচ্ছে ৭.৭৫ বা ৭.৭৯ গিগাবাইট। অপারেটিং সিস্টেম, পেনড্রাইভ কোন ফাইল সিস্টেমে রয়েছে এবং সিস্টেম মেমোরির ওপর নির্ভর করে এমনটা হয়ে থাকে।


এটিও পড়ুন computer বন্ধ হতে বেশি time নিচ্ছে?

তবে বুটিস নামের ছোট্ট একটি প্রোগ্রাম পেনড্রাইভের পার্টিশনগুলোকে এক করে সঠিক আকার নির্ধারণ করতে সহায়তা করে। এটি

ওয়েব ঠিকানা থেকে নামিয়ে নিন।
যেভাবে কাজটি করবেন
প্রোগ্রামটি বহনযোগ্য (পোর্টেবল) হওয়ায় ইনস্টল করার ঝামেলা নেই। তাই নামিয়ে নিয়ে দুই ক্লিকে চালু করুন। কম্পিউটারের ইউএসবি পোর্টে পেনড্রাইভ লাগিয়ে নিন। পেনড্রাইভে দরকারি কোনো ফাইল থাকলে আগেই অন্য কোথাও সরিয়ে নিন। বুটিসের Physical Disk ট্যাবের Destination Disk-এর নিচের তালিকা থেকে আপনার পেনড্রাইভ দেখিয়ে দিন। কাজটি সাবধানে করুন। কারণ, ভুলে হার্ডডিস্ক সিলেক্ট হয়ে গেলে সমস্যা হতে পারে।
এবার নিচের Parts Manage বোতাম চাপুন।

এখানে পেনড্রাইভের সব পার্টিশন দেখাবে। এখানে শুরুর পার্টিশন নির্বাচন করে নিচের Re-Partitioning বোতামে আবার ক্লিক করুন। Removable disk repartitioning ডায়ালগ বক্স চালু হলে এখানের Disk Mode এর USB-HDD mode (Single Partition) নির্বাচন করুন। File system এ FAT 32 নির্বাচন করুন। Vol Label এর ঘরে যেকোনো নাম দিন। Start LBA ঘরে 1 লিখে Reserved Secs ঘরে 32 লিখে এবার ওকে করুন।
এবার রি-পার্টিশন এবং সব পার্টিশনের তথ্য (ডেটা মুছে ফেলার আগে একটি সতর্কতামূলক বার্তা আসবে। এখানে OK করুন। কিছুক্ষণ পর Congratulations! Formatting was successful! বার্তা দেখিয়ে কাজটি সম্পন্ন হবে। এখানে OK চেপে কম্পিউটারে গিয়ে পেনড্রাইভের জায়গা দেখুন।

এটিও পড়ুন কিছু notepad ট্রিকস (part-3)

পেনড্রাইভের অতিরিক্ত জায়গা মুছে গিয়ে সঠিক আকার পাবেন। জায়গা না বাড়লে বুঝতে হবে এটি সিস্টেম মেমোরিতে রয়ে গেছে বা নির্মাতা এটুকু জায়গাই বরাদ্দ রেখেছে।আশাকরি পোস্টটি আপনার উপকারে আসবে। শেয়ার করতে ভুলবেন না।
Read More »

Sunday, March 17, 2019

আপনার পেনড্রাইভকে বানিয়ে ফেলুন পোর্টেবল কম্পিউটার

(বিডি টিপ্স টেক)আশাকরি সবাই  ভাল আছেন।আজ আপনাদের সাথে একটি টিপ্স শেয়ার করবো আপনারা চাইলে খুব সহজে আপনার পেন্ড্রাইভকে আপনার পোর্ট্যাবল কম্পিউটার হিসেবে ব্যবহার করতে পারবেন।এর ফলে আপনার সেভ করা হিস্টরি,বুকমার্ক বা সফটয়্যার যে কারো কম্পিউটারে ব্যবহার করতে পারবেন। এর জন্য দরকার হবে একটি সফটওয়্যারটিএটি মূলতঃ একটি পোর্টেবল এপ্লিকেশন লঞ্চারআপনার পেন ড্রাইভে রাখা পোর্টেবল এপ্লিকেশনগুলোকে অনেকটা উইন্ডোজের স্টার্ট মেন্যুর মত দেখাবেতবে এতে আরো কিছু গুরুত্বপূর্ন ফিচার ও রয়েছে

আপনার পেনড্রাইভকে বানিয়ে ফেলুন পোর্টেবল কম্পিউটার
আপনার পেনড্রাইভকে বানিয়ে ফেলুন পোর্টেবল কম্পিউটার

keyword: pc tips bangle,bangla help tips,it tips bangle,it tips in bangle,android tips bangle,bangla pc tips,রিংটোন ডাউনলোড,ফ্রী গেম ডাউনলোড,পেনড্রাইভকে বানান কম্পিউটার,অন্যের কম্পিউটারে ব্যবহার করুন নিজের কম্পিউটার,পেনড্রাইভকে বানান পোর্টেবল কম্পিউটার,কিভাবে নিজের কম্পিউটার অন্যের কম্পিউটারে ব্যবহার করবেন।

 এই লিংক (কিছুক্ষন অপেক্ষা করে skip add এ ক্লিক করুন) থেকে সফটওয়্যার ডাউনলোড করে নিনএকটি খালি পেনড্রাইভ পিসির সাথে সংযুক্ত করুনএবার ডাউনলোড করা portableApps.com_Platform_Setup_xx.x.x চালু করুনDetination Folder হিসেবে পিসিতে লাগানো পেন ড্রাইভটিকে দেখাবেনা দেখালে ব্রাউজ করে দেখিয়ে দিনএর পর ইনস্টল করে ফেলুনPortableApps.com Platform সয়ংক্রিয়ভাবে চালু হবেনা হলে মাই কম্পিউটার থেকে পেন ড্রাইভে প্রবেশ করে Start প্রোগ্রামটি চালু করুনউইন্ডোজের স্টার্ট মেন্যুর মত একটা মেন্যু দেখতে পাবেন
এই মেন্যুর ডান পাশে Apps -> Get More Apps… এ ক্লিক করুনপোর্টেবল এপ ডিরেক্টরি চালু হবেএখান থেকে আপনি ডাউনলোড ও ইনস্টল করতে পারবেন ওয়েব ব্রাউজার, ইউটিলিটি, মাল্টিমিডিয়া, শিক্ষামূলক সফটওয়্যার, গেমস সহ শতাধীক ফ্রি সফটওয়্যারএছাড়াও যে কোন পোর্টেবল প্রোগ্রাম আপনি PortableApps.com Platform এ সংযুক্ত করতে পারবেনএজন্য মাই কম্পিউটার থেকে পেন ড্রাইভে প্রবেশ করুনএখানে PortableApps নামে একটা ফোল্ডার দেখতে পাবেন PortableApps ফোল্ডারের ভেতরে সাব ফোল্ডার করে পোর্টেবল প্রোগ্রাম পেস্ট করুনযেমন- আপনি যদি Adobe Illustrator CS5 এর পোর্টেবল ভার্শন রাখতে চান তাহলে PortableApps এর ভেতর Adobe Illustrator CS5 নামে একটা ফোল্ডার তৈরী করে এর ভেতর Adobe Illustrator CS5 এর পোর্টেবল ফাইলটি রাখুনএবার PortableApps.com Platform এর মেন্যুর ডান পাশে Apps -> Refresh App Icons এ ক্লিক করুনএখন মেন্যুতে Adobe Illustrator CS5 দেখতে পাবেন এভাবে আপনি যতখুশি(পেন ড্রাইভ ফুল না হওয়া পর্যন্ত) পোর্টেবল প্রোগ্রাম এখানে সংযুক্ত করতে পারবেন
কোন প্রোগ্রামের আপডেটেড ভার্শন বের হলে PortableApps.com Platform এর বিল্টইন এপ আপডেটারের মাধ্যমে আপনি তাদের অটো আপডেট করতে পারবেনফলে সবসময় পাবেন আপডেটেড প্রোগ্রাম

আপনি পছন্দমত কোন ফন্ট দিয়ে একটা প্রেজেন্টেশন তৈরী করলেন কিন্তু অন্য পিসিতে ফাইলটি ওপেন করার পর দেখা গেল ফন্টগুলো পরিবর্তন হয়ে গেছেকারণ আপনি যে ফন্ট দিয়ে এটি তৈরী করেছিলেন তা এই পিসিতে নেইএই সমস্যা সমাধানের জন্য PortableApps.com Platform এ পোর্টেবল ফন্ট সাপোর্ট রয়েছেআপনি যদি কোন থার্ডপার্টি ফন্ট কোন ফাইলে ব্যবহার করেন, তাহলে সেই ফন্টটি পেন ড্রাইভের PortableApps -> PortableApps.com -> Data -> Fonts ফোল্ডারে রেখে দিনফন্ট সমস্যা আর হবে নাএখানে উল্লেখ্য যে, Data ফোল্ডারের ভেতর Fonts ফোল্ডারটি না ও থাকতে পারেসেক্ষেত্রে আপনাকে তৈরী করে নিতে হবেতবে মনে রাখবেন পেনড্রাইভের স্পেস যত বেশি হবে তত বেশি সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।ভাল লাগলে একটি কমেন্ট এবং শেয়ার করে যাবেন এর চেয়ে বেশি কি আশা করতে পারি।
Brandable Domain Names
Read More »

Wednesday, December 19, 2018

ধীরগতির পেনড্রাইভের গতি বাড়বেন যেভাবে

দীর্ঘদিন নিয়মিত ব্যবহারে পেনড্রাইভের গতি কমতে থাকেগতি কমার বেশ কিছু কারণ থাকে
যে কারণে গতি কমে:
* পেনড্রাইভের নিয়মিত ব্যবহারে তথ্য স্থানান্তরের গতি কমতে থাকে
* কোন ধরনের তথ্য পাঠানো হচ্ছে সেটার বিবেচনায় গতি কমেআবার গান, ভিডিও বা ডকুমেন্টস ফাইল দ্রুত স্থানান্তরিত হয়কিন্তু এক ফোল্ডারে ছোট ছোট অনেক ফাইল থাকলে ফাইলগুলে ধীর লয়ে স্থানান্তরিত হয়
* আবার কম্পিউটারের ইউএসবি পোর্ট ও পেনড্রাইভের সংস্করণের ওপর নির্ভর করে তথ্য ধীরে নাকি দ্রুত যাবে
 
ধীরগতির পেনড্রাইভের গতি বাড়বেন যেভাবে
ধীরগতির পেনড্রাইভের গতি বাড়বেন যেভাবে
যেভাবে গতি বাড়ানো যায়
ফাইল সিস্টেম পরিবর্তন: উইন্ডোজ এক্সপি থেকে পরের সব অপারেটিং সিস্টেম ফাইল স্থানান্তরের জন্য এনটিএফএস ফাইল সিস্টেম ব্যবহার করা হয়আপনার ব্যবহৃত পেনড্রাইভের ফাইল সিস্টেম যদি আগের এফএটি হয়ে থাকে, তবে তথ্য স্থানান্তরের গতি ধীর হবেইউএসবি পোর্টে পেনড্রাইভে লাগিয়ে নিনএবার পেনড্রাইভে ডান ক্লিক করে Format-এ ক্লিক করুনFile system থেকে NTFS নির্বাচন করুনFormat option-এর Quick Format-এ থাকা টিক চিহ্ন তুলে দিনStart-এ ক্লিক করে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুনএভাবে পেনড্রাইভ ফরম্যাট করতে সময় বেশি নিতে পারে
ডিস্কে সমস্যা থাকলে: যদি ডিস্কের সমস্যা স্ক্যান করে নেওয়া যায় তবে তথ্য স্থানান্তর দ্রুত হবেএ জন্য পেনড্রাইভে মাউসের ডান বোতামে ক্লিক করে Properties-এ যানTools ট্যাবে ক্লিক করুনআবার Check now বোতামে ক্লিক করুনAutomatically fix file system errors এবং Scan for and attempt recovery of bad sectors-এ টিক চিহ্ন দিয়ে Start বোতাম চাপুনএই কাজটি সম্পন্ন হতেও সময় বেশি নেবে
ফরম্যাট: পেনড্রাইভের তথ্য স্থানান্তর দ্রুত করার জন্য অনেক ব্যবহারকারীই প্রতিবার ব্যবহারের আগে ফরম্যাট করে নেনএটি অনেকাংশে বেশ কাজেরকিন্তু অনেক প্রযুক্তিবিদের মতে, ঘন ঘন ফরম্যাট করার ফলে পেনড্রাইভ তার কর্মক্ষমতা হারাতে পারে


নিয়মগুলো সাবধানে এবং প্রতি মাসে দু-তিনবার করলে পেনড্রাইভে তথ্য স্থানান্তর দ্রুত হবে
Read More »

Friday, August 10, 2018

পেনড্রাইভ বা মেমোরি কার্ড এ ডেটা পার্টিশন করে রাখুন।

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহ,

আশা করি পরম করুণাময় আল্লাহ তায়ালার রহমতে সবাই ভাল আছেন।
আমিও আল্লাহর রহমতে অনেক ভালো আছি।

আমাদের আজকের আলোচনার বিষয় হচ্ছে কিভাবে আপনি পেনড্রাইভ বা মেমোরি কার্ড এ ডেটা পার্টিশন করে রাখবেন।
Partition Pen drive or Memory Card

ব্যবহারকারী সুবিধামতো গুরুত্বপূর্ণ ডেটা বা সফটওয়্যারকে এক ড্রাইভে আবার সিনেমা কিংবা ভিডিও ফাইলকে আরেক ড্রাইভে রাখতে পারেন। মূলত সাজানো গোছানো থাকলে ডেটা সহজে খুঁজে পাওয়া যায়। ডেটা আদান প্রদানের জনপ্রিয় মাধ্যম ইউএসবি (USB) পেনড্রাইভে যদি পার্টিশন করা যায় কেমন হয় তাহলে? কাজের সুবিধার জন্য অনেকেই ১৬ বা ৩২ জিবি কিংবা তারও বেশি ধারণ ক্ষমতার পেনড্রাইভ ব্যবহার করেন। তাদের কাজকে আরও বেশি সুবিধাজনক করতে আলাদা পার্টিশন করে তাতে ডেটা রেখে ব্যবহার করলে কাজ আরও সাজানে গোছানো হবে।

যেভাবে পেনড্রাইভ বা মেমোরি কার্ড পার্টিশন করবেন।
প্রথমে পেনড্রাইভ বা মেমোরি কার্ড এর Properties এ যান। এখানে ফাইল সিস্টেম যদি NTFS না দেখিয়ে FAT32 দেখায় তাহলে সেটিকে ফরম্যাট করে NTFS করে দিতে হবে। এবার Disk Management এ গিয়ে ইউএসবি ড্রাইভের উপর মাউসের ডান ক্লিক করে Shrink Volume এ ক্লিক করুন। এবার নতুন পার্টিশনের জন্য যত জায়গা চান তা মেগাবাইটে লিখুন এবং Shrink বোতামে ক্লিক করুন।  এই অপশন আপনার ইউএসবি ড্রাইভে unallocated অংশ তৈরী করবে। unallocated অংশে ক্লিক করে New Simple Volume এ ক্লিক করুন । এরপর next, next ড্রাইভ লেটার সিলেক্ট এবং next এরপর finish এ ক্লিক করলে দেখবেন নতুন ড্রাইভ তৈরী হয়েছে। যাদি আপনি ড্রাইভ দুটিকে আবার একসাথে করতে চান, তবে ড্রাইভে মাউসের ডান ক্লিক করে Delete Volume এ ক্লিক করুন।

এরপরেও যদি না পারেন তবে নিচের ভিডিওটি ভালো করে দেখুন।

ভিডিওটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে social media তে শেয়ার করবেন এবং চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করবেন।

সবাইপ্রযুক্তির সাথে থাকুন।
মাতৃভাষা বাংলাই হোক প্রযুক্তির ভাষা।

যেকোনো প্রয়োজনে আমরা আছি
আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ bd tech group
ফেইসবুক পেইজ bd tips tech
ইউটিউব চ্যানেল Youtube channel
Read More »

Thursday, April 26, 2018

পেনড্রাইভ(pendrive) ওপেন হচ্ছে না??

বিডি টেক ব্লগে আপনাদের স্বাগতম।আশাকরি সবাই ভাল আছেন।অনেক সময় ভাইরাসের প্রভাবে পেনড্রাইভে ঢোকা যায় না। Pendrive is Write Protected বার্তা আসে, ফলে পেনড্রাইভ ফরম্যাট হয় না। চাইলে সহজেই এর সমাধান করা যাবে। এ জন্য ইউএসবি পোর্টে পেনড্রাইভ লাগিয়ে নিয়ে CTRL+R বোতাম একসঙ্গে চেপে রান চালু করতে হবে।
পেনড্রাইভ ওপেন হচ্ছে না-bdtipstech
পেনড্রাইভ ওপেন হচ্ছে না-bdtipstech

কিওয়ার্ড:পেনড্রাইভ ভাইরাস সমস্যা,পেনড্রাইভ শর্টকাট সমস্যা,পেইড্রাইভ ওপেন হয় না,পেনড্রাইভ ফরম্যাট হয় না,পেনড্রাইভের ভাইরাস সমস্যা সমাধান,অনলাইনে আয়ের টিপ্স,ফ্রিল্যান্সিং করে আয়,পিটিসি থেকে আয়,bd tech blog,bd bangla blog ,bdtech tunes

 এরপর regedit লিখে এন্টার চাপুন। এবার HKEY_LOCAL_MACHINE > SYSTEM > CurrentControlSet > Control > StorageDevicePolicies পর্যন্ত যান।

কোনো কোনো কম্পিউটারে উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে StorageDevicePolicies নামের কি থাকে না। না থাকলে Control পর্যন্ত গিয়ে Control-এর ওপর মাউসের ডান বোতামে ক্লিক করুন। New থেকে Key নির্বাচন করুন। এখানে StorageDevicePolicies লিখে এন্টার চাপলে সেটি তৈরি হয়ে যাবে। এবার ডান দিকে রাইট ক্লিক করে New থেকে ৩২-বিট উইন্ডোজের জন্য DWORD (32-bit) value এবং ৬৪-বিটের জন্য DWORD (64-bit) value-তে ক্লিক করে এটির নাম WriteProtect লিখে দিন। WriteProtect-এ দুই ক্লিক করে Value Data Box-এ 0 (শূন্য) লিখে ওকে চাপুন। এবার স্টার্ট মেনুতে cmd লিখুন। cmd এলে সেটির ওপর মাউসের ডান বোতামে ক্লিক করে Run as administrator চেপে খুলুন।

এবার এখানে diskpart লিখে এন্টার চাপুন। আবার list disk লিখে এন্টার চাপুন। তালিকায় আপনার পেনড্রাইভ দেখালে select disk K: লিখুন। এখানে K: হচ্ছে পেনড্রাইভের ড্রাইভ লেটার, আপনার পেনড্রাইভের ড্রাইভ লেটার জেনে নিয়ে K: এর স্থানে সেটি লিখে এন্টার চাপুন। এবার attributes disk clear readonly লিখে এন্টার চাপুন। আবার clean লিখে এন্টার চাপুন। পরের বার create partition primary লিখে আবার এন্টার চাপুন। শেষে format fs=fat 32 লিখে এন্টার চাপুন। কম্পিউটার রিস্টার্ট করে নিয়ে পেনড্রাইভ ফরম্যাট করে নিন।

ওপরের নিয়মে কাজ না হলে আপনার পেনড্রাইভের ড্রাইভ লেটার জেনে নিন। পেনড্রাইভ কম্পিউটারে লাগিয়ে শাটডাউন করুন। আবার কম্পিউটার চালুর বোতাম চেপে দ্রুত কি-বোর্ড থেকে (F8) কি চেপে ধরুন। Advanced Boot Options দেখাবে। এখানে কি-বোর্ডের ওপর-নিচ কি ব্যবহার করে Safe Mode with Command Prompt নির্বাচন করে এন্টার বোতাম চাপুন। ফাইল লোড সম্পন্ন হলে কমান্ড প্রম্পট চালু হবে। এখানে পেনড্রাইভের ড্রাইভ লেটার K: লিখে এন্টার চাপুন। পরেরবার আবারও format K: লিখে এন্টার চাপুন। পেনড্রাইভ ফরম্যাট করতে চান কি না, সেটি জানতে Y/N কি চাপতে বলবে। তাই এখানে Y লিখে আবারও এন্টার চাপলে পেনড্রাইভ ফরম্যাট হওয়া শুরু করবে।
যেকোনো প্রয়োজনে আমরা আছি 
আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ facebook group
ফেইসবুক পেইজ facebook page
ইউটিউব চ্যানেল Youtube
Read More »

Get post by Email

copyright 2014-2020@bdtipstech DMCA.com Protection Status