Ads By Blogger

Sunday, April 19, 2020

কিভাবে ব্লগে দুইটি পোস্টের মাঝখানে বিজ্ঞাপন বসাবেন


(bd tips tech)বিডি টিপ্স টেকে আপনাদের স্বাগতম।আশাকরি সবাই ভাল আছেন।পোস্টের টাইটেল দেখেই বুঝতে আজকের পোস্টটি কি সমন্ধ্যে তবু না বুজতে পারলে আমার ব্লগের হোম পেইজে চলে
Read More »

Sunday, February 16, 2020

কিভাবে Android এবং computer এ অটো আপডেট বন্ধ করবেন এবং ডাটা সেভ করবেন

(bd tips tech) বিডি টিপ্স টেকে আপনাদের স্বাগতম।তারহীন প্রযুক্তির ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে অনেকেই সাধারণ একটা সমস্যার মুখোমুখি হন প্রায়ই। ব্যবহার না করলেও ইন্টারনেট প্যাকেজের নির্ধারিত পরিমাণের ডেটা (সাধারণত মেগাবাইট বা এমবি) কেনার কিছু সময় পরই সব ডেটা শেষ হয়ে যায়। ফলে ইন্টারনেট বিলে বাড়তি খরচ মেটাতে হয়। কম্পিউটার বা বহনযোগ্য যেকোনো যন্ত্রে ইন্টারনেট সংযোগ নেওয়ামাত্র সেগুলো তাদের সিস্টেম বা অ্যাপলিকেশনগুলো স্বয়ংক্রিয়ভাবে হালনাগাদ করা শুরু করে। এসব সেটিংস বেশির ভাগ ক্ষেত্রে আগে থেকে ঠিক করা থাকে। তাই ব্যবহারকারীর অজান্তেই ইন্টারনেট ডেটা খরচ হতে শুরু করে। কম্পিউটার, মুঠোফোন বা বহনযোগ্য যন্ত্রের স্বয়ংক্রিয় হালনাগাদ নিয়ন্ত্রণ করে অযথা ইন্টারনেট ডেটা খরচের ব্যাপারটা কমিয়ে আনা যায়। যদিও ব্যবহারকারীর নিরাপত্তা এবং উন্নত ব্যবহার নিশ্চিত করতে স্বয়ংক্রিয় হালনাগাদ অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটা বিষয়।

এটিও পড়ুন Computer চালু বন্ধের সময় জানুন সহজে

কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা ইচ্ছে করলে তাঁদের অপারেটিং সিস্টেমের ধরন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারেন। উইন্ডোজ ৭ এবং উইন্ডোজ ৮ অপারেটিং সিস্টেমচালিত কম্পিউটার হলে Control Panel/System and Secutiry/Windows Update পর্যন্ত গিয়ে Change Settings ক্লিক করে ইম্পোর্টেন্ট আপডেটস মেনু থেকে Never check for updates অপশনটি নির্বাচন করে দিন।

অথবা স্টার্ট মেনুতে ক্লিক করে সার্চ বাক্সে Update লিখে ফলাফল থেকেও উইন্ডোজ আপডেট অপশনটি পাওয়া যাবে। উইন্ডোজ ১০ সিস্টেম হলে স্টার্ট মেনুতে ক্লিক করে Settings/Network & Internet/Advanced Option/Set as metered connection চালু করে দিন।
কম্পিউটারে ডাটা সাশ্রয় করার জন্য নেট লিমিটার ফ্রি ভার্সন সফটয়্যারটি ব্যবহার করতে পারেন।যা দিয়ে নির্দিষ্ট সফটয়্যারের ডাটা কানেশন বন্ধ করে দিয়ে পারবেন।

এটিও পড়ুন laptop এর key-board কাজ না করলে

অ্যান্ড্রয়েড মুঠোফোন ব্যবহারকারী হলে প্লেস্টোর অ্যাপটি চালু করুন। ওপরে বাঁয়ে থাকা সেটিংস মেনুতে চাপ দিয়ে আবার Settings অপশনে চাপ দিন। প্রথমেই থাকা Auto-update apps অপশনে চাপ দিয়ে Do not auto-update apps অপশনটি চেপে দিন।

এন্ড্রয়েডে ডাটা উইসেজ কমাতে settings থেকে data usages এ ক্লিক।তারপর menu বাটুন চেপে restriction background data চেক করে দিন।

আশাকরি এই টিপ্স গুলি আপনার ডাটা খরচ অনেকটা কমিয়ে আনবে।শেয়ার এবং কমেন্ট করতে ভুলবেন না।
Read More »

Monday, February 10, 2020

কম্পিউটারের কিছু সাধারণ সমস্যা এবং তার প্রতিকার

বিডি টিপ্স টেকে আপনাদের স্বাগতমআশাকরি সবাই ভাল আছেনমাঝে মাঝে কম্পিউটারে ছোট-খাটে ঝামেলা দেখা দেয়কিন্তু সেটার সমাধান না জানার কারণে আরও জটিল হয়ে যায়
এমন কিছু সাধারণ সমস্যার সহজ সমাধান দেওয়া হলো, যা প্রয়োগ করলে কম্পিউটারের খুঁটিনাটি সমস্যা দূর হবে
কম্পিউটারের কিছু সাধারণ সমস্যা এবং  তার প্রতিকার
কম্পিউটারের কিছু সাধারণ সমস্যা এবং  তার প্রতিকার 

keyword :কমম্পিউটারের সাধারণ সমস্যা,কম্পিউটারের হার্ডওয়্যার সমস্যা,কম্পিউটার চালু হচ্ছে না,কিভাবে সিস্টেম রিস্টোর করতে হয়,কিভাবে সিস্টেম ব্যাকআপ রাখবেন,কিভাবে সিস্টেম ফাইল চ্যাক করবেন,কিভাবে সফটওয়্যার আইনইন্সটল করবেন,কম্পিউটারের কিছু সমস্যার সমাধান,ককম্পিউটার চালু না হলে কি করবেন,bd technology,বাংলা টেক সাইট,বাংলা টেকনোলজি সাইট

কম্পিউটার চালু না হলে

কম্পিউটার কখনো চালু না হলে সেফ মুড থেকে বুট করা যায়এ জন্য কম্পিউটার চালু করার বোতাম চেপে কি-বোর্ড থেকে F8 চাপুনতালিকা থেকে Last Known Good Configuration নির্বাচন করে আগে ভালো থাকা উইন্ডোজকে ফিরিয়ে আনা যাবেকম্পিউটার চালু হতে সমস্যা হলে Windows Startup Repair চেপে তা ঠিক করা যায়এটি স্টার্টআপ (চালু হওয়া) সমস্যা দূর করে কম্পিউটারকে আবার চালু (বুট) করে



সিস্টেম রিস্টোর পয়েন্ট

কম্পিউটার চালাতে গেলে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে, এ কারণে ভালো অবস্থাতেই সিস্টেম রিস্টোর পয়েন্ট তৈরি করে রাখলে প্রয়োজনে তা কাজে লাগানো যাবেএ জন্য Start Menu থেকে Accessories-এ যানSystem Tools থেকে System Restore-এ ক্লিক করে খুলুনঅথবা উইন্ডোজ সাত বা আটের স্টার্ট মেনুতে rstrui. exe লিখে এন্টার চাপুনসিস্টেম রিস্টোর খুলে গেলে Next চেপে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুনপরের ধাপে Finish চাপলে নতুন সিস্টেম পয়েন্ট তৈরি হবেভবিষ্যতে উইন্ডোজের যেকোনো সমস্যায় তৈরি থাকা সিস্টেম রিস্টোর পয়েন্ট থেকে উইন্ডোজকে ফিরিয়ে আনা যাবে

সিস্টেম ফাইল চেকার

কম্পিউটারের সিস্টেমগত কোনো সমস্যা তৈরি হলে সিস্টেম ফাইল চেকার ব্যবহার করে সমস্যার সমাধান করা যায়সাধারণত কম্পিউটারের কোনো ফাইল প্রতিস্থাপিত (রিপ্লেস) হলে বা ক্ষতিগ্রস্ত কিংবা নষ্ট হলে ভালো ফাইল দিয়ে সিস্টেম ফাইল চেকার সেটি দূর করেএ জন্য স্টার্ট মেনুতে গিয়ে cmd লিখুনCommand Prompt এলে তাতে মাউসের রাইট ক্লিক করে Run as administrator চেপে খুলুনএবার কমান্ড প্রম্পটে sfc/scannow লিখে এন্টার চাপুনকিছুক্ষণ সময় নিয়ে রিপোর্টের মাধ্যমে কম্পিউটারে কোনো সমস্যা বা ক্ষতিগ্রস্ত কিংবা নষ্ট ফাইল থাকলে ঠিক করে তা জানিয়ে দেবে

অনাকাঙ্ক্ষিত সফটওয়্যার মুছুন

কম্পিউটারের কন্ট্রোল প্যানেল চালু করে ইনস্টল থাকা প্রোগ্রামগুলো চেক করে নিনযদি অনাকাঙ্ক্ষিত বা অব্যবহৃত সফটওয়্যার থাকে তাহলে সেটি মুছে ফেলাই ভালো


আশাকরি টিপ্স গুলি আপনাদের কাজে আসবে লাইক কমেন্ট এবং শেয়ার করতে ভুলবেন না
Read More »

Thursday, February 06, 2020

ওয়াইজ রেজিস্ট্রি ক্লিনার

আসসালামু আলাইকুম,

আজকে আপনাদের একটা পিসি ক্লিনার দিব।

এটাকে পিসি ক্লিনার বলা যায় না, কারন 

এটা একটা রেজিস্ট্রি ক্লিনার।
এটা সম্পূর্ণ ফ্রি, কোনো ক্র্যাক দরকার নাই।

এর নাম “Wise Registry Cleaner” বা ওআইজ রেজিস্ট্রি ক্লিনার।
তৈরি করেছে Wise Cleaner Group





এতে আছে একটা রেজিস্ট্রি ক্লিনার, একটি রেজিস্ট্রি ডিফ্রাগম্যানটার এবং সিস্টেম টিউনআপ ইউটিলিটি।

রেজিস্ট্রি ডিফ্রাগম্যানটার ব্যাবহার করার পর আপনার পিসি রিবুট করবে, এতে ভয় পাওয়ার কিছু নাই।

আপনি ডাউনলোড করে নিন।



ওয়েবসাইট www.wisecleaner.com
ট্যাগঃ Wise Registry Cleaner
Read More »

Friday, January 10, 2020

কিভাবে আপনার ফেইসবুক পেইজের এডমিনদের সো করাবেন

বিডি টিপ্স টেকে আপনাদের সবাইকে স্বাগতম। আশা করি সবাই ভাল আছেন।আমি আজ দেখাব কিভাবে ফেইসবুকে
আপনি আপনার পেইজে এডমিনদের সো করাবেন।আর্থাৎ আপনার ফেইসবুক পেইজের এড কে ককে ভিজিটররা তা দেখতে পাবে।সাধারনত ডিফল্টভাবে অপশনটি চালু থাকে না।চালু করতে চাইলে প্রথমে আপনার পেইজে গিয়ে edit settings গিয়ে more আপশন featured চলে যান।

তারপর edit feature page owner এ ক্লিক করুন।

তাহলে নতুন একটি পেইজ ওপেন হবে।এখানে আপনি যাকে এডমিন হিসেবে তার পাশে টিক দিয়ে সেভ করে বের হয়ে আসুন।তারপর view page ক্লিক করে about এ ক্লিক করলে page admin নিচে আপনার ছবি এবং নাম দেখতে পারবেন।
পোস্টটি ভাল লাগলে কমেন্ট শেয়ার করতে ভুলবেন না।
Read More »

Saturday, January 04, 2020

অনলাইনে ৫টি সবচেয়ে জনপ্রিয় গ্যাজেটস ২০২০

নতুন বছর মানেই নতুন সম্ভাবনা, নতুন নতুন প্রযুক্তির আগমন। প্রতিনিয়ত প্রযুক্তি যেমন আপডেট
হচ্ছে, তেমনি মানুষের জীবনধারাকে সহজ করার জন্য বিভিন্ন গ্যাজেটস আবিষ্কার হচ্ছে।নতুন
টেকনোলজি সহ কোন পণ্য কিনতে গেলে অবশ্যই আগে রিসার্চ করে নেওয়া জরুরি। আর নতুন
প্রযুক্তি ভালবাসেন না, এমন মানুষ আজকাল খুঁজে পাওয়াই কঠিন। আমাদের নিত্যদিনের জীবনকে
সহজ করেছে গ্যাজেট সমূহ, যেমনঃ ল্যাপটপ, ট্যাব, মিনি ইউএসবি গ্যাজেট, সিকিউরিটি গ্যাজেটস,
রুম হিটার অন্যান্য। এই কারণে আজকাল আমরা অনেক অনেক বেশি গ্যাজেট নির্ভর। বর্তমান
যুগের জনপ্রিয় গ্যাজেটগুলো এই দশকের উদ্ভাবনী প্রযুক্তিগত অগ্রগতিরই ফলাফল। ২০১৯ সালে
বিভিন্ন প্রকার স্মার্টফোন, এবং এর বিভিন্ন অনুষঙ্গ শীর্ষ গ্যাজেটস এর তালিকায় ছিল। আশা করা যাচ্ছে,
২০২০ সালেও এই ধারা বজায় থাকবে। 

চলুন একনজরে দেখে নিই ২০২০ সালে সম্ভাব্য ৫টি টপ গ্যাজেটস, যেগুলো মানুষের জীবনধারা
পরিবর্তনে বেশ জোরালো ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা যাচ্ছেঃ-

প্রোডাক্ট এর বিবরণঃ

  • ব্লুটুথ  ভার্সন বিটি ৪.0 বা তার উপরে। 
  • কম্প্যাটিবল উইথ এন্ড্রয়েড ৪.৪ বা তার উপরে, আইওএস ৮.০ বা তার উপরে। 
  • অপারেটিং মোড হলো সিঙ্গেল টাচ। 
  • এপিপি নেম-লিফান/ ইয়োহো। 

স্পেশাল কিছু ফিচারঃ 

  • ওয়াটার প্রুফ আইপি ৬৭। 
  • হার্ট রেট মনিটর সাপোর্ট, রক্তের অক্সিজেন মনিটর সাপোর্ট এবং স্লিপ মনিটর সাপোর্ট। 
  • মাল্টি-স্পোর্টস মোডস সাপোর্ট, যেমনঃ হাঁটা, দৌড়ানো,রাইডিং, ব্যাডমিন্টন, ইত্যাদি।  
  • এছাড়াও এতে আরো যা সাপোর্ট করে তা হলো, পেডোমিটার, কল ও মেসেজ রিমাইন্ডার, কল
রিজেক্ট, নোটিফিকেশন ফর ফেসবুক, টুইটার, উইচ্যাট, হোয়াটসএপ, প্রভৃতি। 
  • এলার্ট টাইপ হলো ভাইব্রেশন,সাথে আছে অটো লাইট-আপ স্ক্রিন, কাস্টম ডায়াল সাপোর্ট,
সুইচ-ইন বিল্ট-ইন ডায়ালস, এলার্ম, ক্যালেন্ডার, রিমাইন্ডার, ক্যামেরা কন্ট্রোল মোড।

স্ক্রিন সাইজঃ
১.৩ ইঞ্চি রেজুলেশনঃ ২৪০*২৪০ পিক্সেল। ব্যাটারি ক্যাপাসিটিঃ ১৫০ মিলি এম্প ঘন্টা। স্ট্যান্ডবাই
টাইম ৭ দিন। চার্জিং টাইম প্রায় ২ ঘন্টা।
অন্যান্য বৈশিষ্ট্যঃ
ব্যান্ড ম্যাটেরিয়াল হলো সিলিকন। প্রোডাক্টের ওজন ২৮ গ্রাম । সাইজ ১৪০*৮৫*২৭ মিলিমিটার।
প্রোডাক্টের সাথে থাকছে একটি চার্জিং কেবল ও একটি ইউজার ম্যানুয়াল।

প্রোডাক্ট এর বিবরণঃ

  • মডেল নামঃ এম৩ প্লাস। 
  • ব্যাটারি ৯০ মিলি এম্প ঘন্টা। 
  • বিল্ট ইন ব্যাটারি। 
  • স্ক্রিন সাইজ ০.৯৬ ইঞ্চি এলইডি কালার ডিসপ্লে। 
  • ব্লুটুথ পুশ সাপোর্ট (কলার, এসএমএস, মেসেঞ্জার, এপ নিউজ রিমাইন্ডার)। 
  • এতে রয়েছে  হার্ট রেট ডিটেকশন সাপোর্ট, রক্তের অক্সিজেন মনিটর সাপোর্ট এবং স্লিপ মনিটর
সাপোর্ট। 
  • এছাড়াও কল এলার্ট দিবে। প্রফেশনালি ওয়াটারপ্রুফ।


প্রোডাক্ট এর বিবরণঃ
ক্যাপাসিটি ৩২ জিবি। স্ক্র্যাচ প্রুফ। ইজি প্লাগ-ইন। হাই-ইউএসবি ৩.১। এক্সট্রিমলি স্লিম ও বহনযোগ্য।
হাই-স্পিড ট্রানস্ফার স্পিড। ইউএসবি ৩.১, ইউএসবি ও মাইক্রো ইউএসবি কানেকশনের সাথে
কম্প্যাটিবল।   





  • ইউনিভার্সেল ব্লুটুথ ডিভাইস (এন্ড্রয়েড/ আইএস) । 
  • ব্লুটুথ ভার্সন ৪.১। 
  • ১০ মিটার দুরত্ব পর্যন্ত কাজ করে। 
  • স্ট্যান্ডবাই টাইম ১৮০ ঘন্টা। 
  • লাইফ টাইম ৩ থেকে ৪ ঘন্টা। 
  • চার্জিং টাইম ১ ঘন্টা প্রায়।
  •  ফ্রিকুয়েন্সি রেসপন্স ২০ কিলোহার্জ থেকে ২০,০০০ কিলোহার্জ।


  • মাল্টিপয়েন্ট টেকনোলজি উইথ ডুয়াল ফোন কানেকশন। 
  • টক টাইম: 4 ঘন্টা। স্ট্যান্ডবাই টাইম  ২০০ ঘন্টা। 
  • বিল্ট-ইন রিচার্জেবল লিথিয়াম ব্যাটারি। 
  • ভয়েস কল, রিডায়াল সাপোর্ট করে।এটি ওয়্যারলেস ও হালকা, সহজে ব্যবহার করা যায়। 
  • এলইডি লাইট হেডসেট স্ট্যাটাস ইন্ডিকেটর। 
  • যে কোন ব্লু-টুথ ডিভাইসের সাথে কমপ্যাটিবল। 



এছাড়াও আরো কিছু পণ্য রয়েছে আজকেরডিল.কম এ। যেগুলো দৈনন্দিন জীবনের প্রয়োজনীয় চাহিদা মেটাতে সক্ষম। আশা করা যায় এই পণ্যগুলো মানুষের জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠবে
Read More »

Sunday, October 27, 2019

সেরা ৫টি পিসি গেইম ২০১৯- bd tips tech

পিসি গেইমের মধ্যে অনেকগুলো গেইম আছে যেগুলোর নাম আপনি ইতিমধ্যে জানেন এবং কিছু গেইম আছে যেগুলো সম্পর্কে অনেকেরই ধারনা নেই । আবার পিসি গেইম যারা বেশি ভালোবাসে , তারা নামগুলো শুনলেই বুঝতে পারবেন । তাহলে, চলুন , ২০১৮ এর সেরা ৫ টি গেইম নিয়ে আলোচনা করিঃ 
সেরা ৫টি পিসি গেইম ২০১৯- bd tips tech
সেরা ৫টি পিসি গেইম ২০১৯- bd tips tech
বিশ্বের সেরা গেম সেরা অফলাইন গেম বেস্ট এন্ড্রয়েড গেমস জনপ্রিয় এন্ড্রয়েড গেমস 2019 সেরা গেম ২০১৯ জনপ্রিয় এন্ড্রয়েড গেমস 2018 জনপ্রিয় মোবাইল গেম সবচেয়ে জনপ্রিয় গেম

1.Wreckfest Wreckfest হচ্ছে একটি Racing Game যার Graphics এবং Environment দেখে আপনি মুগ্ধ হয়ে যাবেন। এতো চমৎকার একটি গেইম ,যার কথা না বললেই নয় । এই গেইমটি আপনি Online Stream এ খেলতে পারবেন । এটির রেইট এখন 9 /10 আছে , যা দেখে হয়তো বুঝতে পারছেন যে কত High Graphics এর গেইম এটি । যারা এখনো এই গেইমটি খেলেন নি , একবার গেইমটি খেলেই দেখুন । 

2. Vampyr এই গেইমটি মূলত Fantasy এবং Suspense ভিত্তিক গেইম , যেখানে puzzle থাকবে , রহস্য উদঘাটন থাকবে এবং আপনার choice এবং move এর উপর ভিত্তি করে আপনার Ending নির্ধারিত হবে । এটির গ্রাফিক্স RPG Maker Game এর মতো । Environment টা Basic হলেও অনেক চমৎকার একটি গেইম এটি। 

3.Mutan Year Zero – Road to Eden এই গেইমটিও RPG Game এর মতো কিন্তু অনেক ভালো Concept নিয়ে এই গেইমটি তৈরি করা হয়েছে । মূলত , এই গেইমটির কল্প কাহিনী এবং চমৎকার পরিবেশের জন্য এই গেইমটি অনেক সুনাম পেয়েছে । এইখানে প্রানী এবং মানুষের মাঝে একটা কল্প কাহিনীর সামঞ্জস্য্ দেখানো হয়েছে এবং তার মাঝেও Twist এনেছে । এটির Story টাও অনেক আকর্ষনীয় ।তাই , গেইমটি অবশ্যই Recommend করব । 

4. Ghost of a Tale এই গেইমটির Main Protagonist থাকে একটি ইদুঁর । এটি Action RPG গেইম , যেটি মূলত একটি Unity Asset দিয়ে করা হয়েছে । এটির Background Music অনেকটা সহনীয় এবং Environment টাও চমৎকার । এইখানে সবচেয়ে মজার ব্যাপার হচ্ছে – ইদুঁর টি সকল puzzle solve করবে এবং অসাধারণ কিছু move দেখাবে ।

5. Hitman 2 যারা হিট্ম্যানের ফ্যান আছেন আমার মতো , তারা অবশ্যই এই সিরিজটি খেলে দেখবেন । হিট্ম্যান ১ম সিরিজ খেলে অতি আগ্রহে আমি হিট্ম্যান ২ খেলেছি । এতো অসাধারণ Concept দিয়েছে এইটিতে । হিট্ম্যানকে এই গেইমটিতে বিভিন্ন পেশায় বিভিন্ন আঙ্গিকে দেখা যাবে । হিট্ম্যান ২ তে Character Customize তো আছেই , সাথে Action Scenes ও আছে । তাই . Hitman ফ্যানরা , গেইমটি না খেলে থাকলে এখনি খেলে দেখো ।
যেকোনো প্রয়োজনে আমরা আছি
আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ bd tech group
ফেইসবুক পেইজ bd tips tech
ইউটিউব চ্যানেল Youtube channel
Read More »

সেরা ৫টি এন্ড্রয়েড গেইম ২০১৯-bdtipstech

প্রতি বছরেই কিছু নতুন এন্ড্রয়েড গেইম এর দেখা মেলে ,তাদের মধ্যে কিছু গেইম TOP RATED গেইম আবার কিছু Low Rated গেইম । চলুন, High Graphics এর গেইম গুলোর মধ্যে Top Reviewed ৫ টি গেইম নিয়ে কিছু আলোচনা করিঃ 
সেরা ৫টি এন্ড্রয়েড গেইম ২০১৯-bdtipstech
সেরা ৫টি এন্ড্রয়েড গেইম ২০১৯-bdtipstech
সেরা অফলাইন গেম বেস্ট এন্ড্রয়েড গেমস জনপ্রিয় এন্ড্রয়েড গেমস 2019 সেরা এন্ড্রয়েড গেম জনপ্রিয় এন্ড্রয়েড গেমস 2018 সেরা গেম ২০১৯ বিশ্বের সেরা গেম সবচেয়ে

1.PUBG Mobile PUBG গেইম টি কেও চিনে না অথবা , কেও শুনে নি , এমনটা সম্ভবই না । PUBG Mobile ভার্সন ছোট – বড় প্রত্যেকেই খুব আগ্রহের সাথে খেলে যাচ্ছে । PUBG Mobile গেইমটিকে এবং এর গ্রাফিক্সকে এখন পর্যন্ত কেও মেরে দিতে পারে নি । এর হাই গ্রাফিক্স ,Action Scene , Sneak-peak Killing Method সব কিছুই অসাধারণ । এটি মূলত ১.৫০ গিগাবাইটের মতো স্পেস নেয় ।এটির গ্রাফিক্সের জন্য ফোন কম্পেটিবিলিটি হাই রেঞ্জের হলেই এটির অসাধারণ অভিজ্ঞতা করতে পারবেন এবং কখনোই এর অসাধারণ অভিজ্ঞতা ভুলতে পারবেন না । 

2. Shadowgun Legends এই গেইমটি সাধারনত সুটিং গেইম হিসেবে অনেক ভালো স্থানে আছে । এই গেইমটি অন্যান্য সুটিং গেইমের মতো হলেও এটির গ্রাফিক্স এবং অ্যাকশন স্কিম সত্যি অতুলনীয় । এই অ্যাপটির Storage Size ১ গিগাবাইটের মতো নিবে । এই গেইমের প্রত্যাকটি লেভেলে কিছু Story থাকবে যা আপনার প্রগ্রেসের উপর ভিত্তি করবে । এবং চাইলে আপনি আপনার মডেলকে কাস্টোমাইস করতে পারবেন । 

3. Fortnite Battle Royale এই গেইমটি PUBG এর কার্বন কপি করার চেষ্টা করলেও PUBG এর সাথে একে তুলনা করলে ভুল হবে বলে মনে করি । Fortnite আমি খেলেছি কিন্তু আমি বলব, PUBG এর মতো Resolution না হলেও এই গেইমটিও অনেক ভালো খ্যাতি পেয়েছে । মূলত, PUBG এবং Fortnite একি সাথে Release দেয়া হয়ে ছিল । এটির Game Play এর অভিজ্ঞতা আমার কাছে দারূণ লেগেছে । 

4. Asphalt 9 Legends যারা Racing গেইম পছন্দ করেন, তাদের জন্য এই গেইমটি আমি Recommend করব । এতো সুন্দর এবং চমৎকার অভিজ্ঞতা কোনো Racing গেইম থেকে আমি পাইনি । হাই গ্রাফিক্স এবং ১৯২০*১০৮০ দিয়েও গেইমটি খেলতে পারবেন । 

5. Alto’s Odyssey Alto’s Odyssey হচ্ছে একটি Award Winning Game যার Developer এর নাম হচ্ছে – Noodlecake Studios এবং এই গেইমটির এখন পর্যন্ত রেট হচ্ছে 4.6 ।গেইমটি মূলত হচ্ছে – অনেকটা Jumping গেইম কিন্তু এটির Background Music এবং পারিপাশ্বিক পরিবেশ আপনাকে মুগ্ধ করবে । এই গেইমটির Storage Size ৭০ মেগাবাইটের মতো পরবে ।সুতরাং, সকল ধরনের এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে আপনি এই গেইমটি খেলতে পারবেন । গেইম আরো অনেক Release দিচ্ছে , অনেক হাই গ্রাফিক্সের গেইম আসছে কিন্তু আমার খেলা সবচেয়ে সেরা গেইম গুলোই হচ্ছে এগুলো । আশা করি গেইম গুলো খেলে দেখবেন এবং অন্যদেরকে Recommend করবেন ।
যেকোনো প্রয়োজনে আমরা আছি
আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ bd tech group
ফেইসবুক পেইজ bd tips tech
ইউটিউব চ্যানেল Youtube channel
Read More »

ক্রিপ্টো কারেন্সি কী? বিশ্ববাজারে এর ভূমিকা- bd tips tech

ক্রিপ্টোকারেন্সি হলো ডিজিটাল মুদ্রা। ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলি কোনও দেশ বা তার সরকারের মধ্যে আবদ্ধ নয়, সুতরাং কোনও দেশ অর্থনৈতিকভাবে বা অন্যথায় কতটা ভাল পারফর্ম করে তার মানটির সাথে এইভাবে আবদ্ধ হয় না। আর একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলি বিকেন্দ্রীভূত। এর অর্থ ব্যাঙ্কগুলির মতো অর্থের উপরে কারও নিয়ন্ত্রণ নেই। স্বতন্ত্র ব্যক্তিরা একে অপরের সাথে সহজভাবে বাণিজ্য করতে বা কোনও সাহায্য বা মধ্যস্থতাকারী ছাড়াই একে অপরকে অর্থ প্রেরণ করতে পারে।
ক্রিপ্টো কারেন্সি কী বিশ্ববাজারে এর ভূমিকা-bdtipstech
ক্রিপ্টো কারেন্সি কী বিশ্ববাজারে এর ভূমিকা-bdtipstech

বিটকয়েন বিটকয়েন ২০১৯ ক্রিপ্টোকারেন্সি ট্রেডিং ডিজিটাল মুদ্রা কি বিটকয়েন কি ও কেন বিটকয়েন কি বৈধ বিটকয়েন কোন দেশের মুদ্রা বিটকয়েন হিসাব

 বিটকয়েন এটি সর্বাধিক পরিচিত উদাহরণ কারণ এটি প্রথম এবং সবচেয়ে বড় ক্রিপ্টোকারেন্সি। এতক্ষণে, আরও অনেক মুদ্রা তৈরি করা হয়েছে, এবং এটি একটি কারণে ঘটেছে: প্রতিটি ক্রিপ্টোকয়েন টেবিলে একটি প্রযুক্তিগত বৈশিষ্ট্য বা অন্যান্য অগ্রগতি নিয়ে আসে। একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি রয়েছে যা ডলারের দামের সাথে সরাসরি জড়িত রয়েছে, এমন একটি মুদ্রা রয়েছে যা ব্যবহারকারীর পুরো পরিচয় গোপন করার গ্যারান্টি দেয়। যখনই কেউ বা বিকাশকারীদের একটি গ্রুপ মনে করে যে তারা কিছু প্রযুক্তিগত অগ্রগতি বা বৈশিষ্ট্য সরবরাহ করতে পারে, তারা তাদের নিজস্ব ক্রিপ্টোকারেন্সি তৈরি করতে এবং এটি চালু করতে পারে। এবং শেষ অবধি, কয়েকটি মুদ্রার মধ্যে কয়েকটি নির্বাচিত বৈশিষ্ট্যের মধ্যে এমন বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা দীর্ঘমেয়াদে মূল্যবান হতে পারে তারা কম্পিউটার প্রোগ্রাম দ্বারা তৈরি এবং নিয়ন্ত্রণ করা হয়। এই প্রোগ্রামগুলি কীভাবে লেনদেন হয় এবং রেকর্ড করা হয় এবং কীভাবে নতুন মুদ্রা বা টোকেন পাওয়া যায় এবং প্রকাশিত হয় তা নির্ধারণ করে। খনিজ শিল্পী হিসাবে পরিচিত ব্যক্তিরা এবং সংস্থাগুলি প্রতিটি লেনদেনের রেকর্ড রাখে এবং জটিল কম্পিউটার সমস্যাগুলি সমাধান করার চেষ্টা করে যা সমাধান করার পরে, তাদেরকে নতুন মুদ্রা প্রদান হিসাবে প্রদান করে। ক্রিপ্টোকারেন্সি সম্পর্কে কথা বলার সময় আপনি প্রায়ই "ব্লকচেইন" শব্দটি শুনতে পান। এমনকি বড় সংস্থা এবং এমনকি সরকারী প্রতিষ্ঠানগুলি বিভিন্ন ধরণের "ব্লকচেইন প্রযুক্তি" বিকাশ করছে এবং পেটেন্ট দিচ্ছে এটি এমনকি ক্রিপ্টোকারেন্সি জায়গার বাইরেও ক্রপ আপ হচ্ছে। কিন্তু ব্লকচেইন প্রযুক্তি কী? এটা কিভাবে কাজ করে? কেন কেউ যত্ন করে না? এটি কী করতে পারে যা আমরা এখন করতে পারি না? রুত্বপূর্ণ। সংক্ষেপে বলতে গেলে, ব্লকচেইন প্রযুক্তি হ'ল ব্লকচেইন চলমান এমন কিছু। তবে ব্লকচেইন কী? সর্বনিম্ন স্তরে, একটি ব্লকচেইন হ'ল বিটকয়েনের উদ্ভাবক সাতোশি নাকামোটোর তৈরি ডেটা সংরক্ষণের একটি উপায়। এটি ক্রিপ্টোগ্রাফিক ক্রিয়াকলাপের সাথে একসাথে বেঁধে রাখা একগুচ্ছ ব্লক সমন্বিত। একটি ব্লক সম্পর্কে জেনে রাখা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হ'ল এটিতে প্রচুর ডেটা থাকে, যেখানে প্রতিটি টুকরো তার নির্মাতা স্বাক্ষর করে থাকে যাতে এটি সনাক্ত না করে পরিবর্তন বা ফেক করা যায় না। ব্লকের ক্রিপ্টোগ্রাফিক চেইনিং হ্যাশ ফাংশন ব্যবহার করে সম্পন্ন হয় যা গাণিতিক ফাংশন যেখানে একই আউটপুট উত্পাদন করে এমন দুটি ইনপুট সন্ধান করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। প্রতিটি ব্লকে আগের ব্লকটি হ্যাশিংয়ের আউটপুট ধারণ করে, যার অর্থ চেইনে কোনও ব্লক এমনভাবে জাল করা অসম্ভব যা চেইনের নিম্নলিখিত ব্লকের উপর ভিত্তি করে সুস্পষ্ট হবে না। ব্লকচেইনের উদ্দেশ্য হ'ল ডেটা বিকেন্দ্রীকৃত উপায়ে সংরক্ষণ করা, যখন যে কেউ ব্লকচেইনের সত্যতা যাচাই করার অনুমতি দেয়। এটি এই সত্য ভিত্তিক যে ব্লকচেইন জুড়ে বিভিন্ন ক্রিপ্টোগ্রাফিক অপারেশনগুলির ব্যবহার একটি জাল ব্লকচেইন তৈরি করা প্রায় অসম্ভব করে তোলে যা আসল ব্লকচেইন হিসাবে গ্রহণযোগ্য হবে। এর অর্থ হ'ল লোকেরা অন্য কারও কাছ থেকে ব্লকচেইনের একটি অনুলিপি অনুরোধ করতে পারে এবং তাদের উত্সটিতে একেবারেই বিশ্বাস না করেই এর সত্যতাতে বিশ্বাস করতে পারে। আমরা পরবর্তী বিভাগে ব্লকচেইনের বিশেষ বৈশিষ্ট্যগুলি নিয়ে আলোচনা করব। ব্লকচেইন তার বিকেন্দ্রীভূত এবং বিশ্বাসহীন প্রকৃতির সদ্ব্যবহার করে বিভিন্ন নতুন প্রযুক্তির কেন্দ্রবিন্দুতে। মূল এবং সর্বাধিক প্রচলিত অ্যাপ্লিকেশন হ'ল ক্রিপ্টোকারেন্সি, যা ন্যূনতমভাবে লোকেদের ব্লকচেইনে রেকর্ডকৃত লেনদেনের মাধ্যমে মান (অর্থ) প্রেরণ বা সঞ্চয় করতে দেয়। ব্লকচেইনের ক্রিপ্টোকারেন্সি সহ পরিষেবা সরবরাহকারীদের প্রদানের জন্য অন্তর্নির্মিত সমর্থন সহ অন্যান্য পরিষেবাদি সম্পাদনের সক্ষমতা সরবরাহ করার পরে ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলি বেড়েছে।
যেকোনো প্রয়োজনে আমরা আছি
আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ bd tech group
ফেইসবুক পেইজ bd tips tech
ইউটিউব চ্যানেল Youtube channel
Read More »

সেরা পাঁচ ডিএসএলআর ক্যামেরা

ডিএসএলআর ভিডিও এবং ফটোগ্রাফির জন্য ব্যবহার করা হয়। উন্নত ফিচার এবং গুনগত মানের সেরা পছন্দ হচ্ছে ডিজিটাল ক্যামেরা । এই ক্যামেরার ব্যবহার দিন দিন বেরেই চলেছে। বিভিন্ন কারণে আমরা ডিজিটাল ক্যামেরা কিনে থাকি। বর্তমান সময়ের সেরা ৫টি ক্যামেরার বিবরণ নিচে দিলাম। 

সেরা পাঁচ ডিএসএলআর ক্যামেরা-bdtipstech
সেরা পাঁচ ডিএসএলআর ক্যামেরা-bdtipstech
ক্যামেরার গঠন ক্যামেরার বিভিন্ন অংশ ক্যামেরার কার্যপ্রণালী ক্যামেরা কিভাবে কাজ করে ক্যামেরা apps ডিএসএলআর ক্যামেরার দাম ২০১৮ ভিডিও ক্যামেরা বাজার ক্যামেরা কত প্রকার

১। ক্যানন EOS ৮০ডি বিল্ড কোয়ালিটি এবং প্রকৃতির ঝামেলা ধুলা বালি বৃষ্টি থেকে রক্ষা করবে। ৬০ এফ পি এস ভিডিও করা যাবে। ৪৫টি ডুয়েল পিক্সেলস অটো-ফোকাস যা সেরা মানের ছবি নিশ্চিত করবে। শর্ট ফিল্ম অথবা মুভি তৈরি করতে পারবেন। ২৪.২ মেগাপিক্সেল, সিমস সেন্সর। সব ধরনের লেন্স ব্যবহার করতে পারবেন। ডিজিক ৭ প্রসেসর । 

২। ক্যানন EOS ২০০ ডি এন্ট্রি লেভেলের ক্যামেরা। যারা একেবারে নতুন তাদের জন্য এই ক্যামেরাটি ভাল হবে। কাজ ভেদে ডিজিটাল এসএলআর ক্যামেরার পার্থক্য থাকে। আপনার কাজের জন্য কোনটি দরকার সেটি খুঁজে বের করতে হবে। শুধু শখের জন্য এটি হতে পারে আপনার পছন্দ। ২৪.২ মেগাপিক্সেল, সিমস সেন্সর। EF/EF-S লেন্স ব্যবহার করতে পারবেন। ডিজিক ৭ প্রসেসর । ডুয়েল পিক্সেলস অটো-ফোকাস। যারা ইউটিউব ভিডিও বানাবেন তাদের জন্য এটি বেষ্ট হবে। 

৩। নিকন ডি ৮৫০ যারা প্রফেশনাল মানের ফোঁর কে ভিডিও তৈরি করতে চান। তাদের এটিকে প্রথম পছন্দের রাখতে হবে। ৪৫.৭ মেগাপিক্সেল ফুল-ফ্রেম সেন্সর । কিমি. আলোতে ভালো ডায়নামিক রেঞ্জ পাওয়া যায় । ৭ এপিএস শুটিং, ১৫৩ ফোকাস পয়েন্ট । 120 এফপিএস ফ্রেমে ফোরকে ভিডিও ধারণ করতে পারবেন । 

৪। ক্যানন EOS ১৩০০ ডি এন্ট্রি লেভেলের ক্যামেরা। কার্যকর পিক্সেলস –১৮ মেগাপিক্সেল –প্রসেসর – ডিজিক 4। লেন্স মাউন্ট EF/EF-S। টিএফটি ডিসপ্লে পাবেন। ৩ ইঞ্চির পর্দা টাচ করতে পারবেন। এই ক্যামেরা দিয়ে প্রাথমিক পর্যায়ের ফটোগ্রাফি বেশ ভালোভাবেই সম্ভব। লাইটিং, কম্পোজিশন সম্পর্কে ভালো ধারণা থাকলে ক্যামেরাটি থেকে বেশ ভালো মানের ছবি ধারণ সম্ভব। ফটোগ্রাফিতে অভিজ্ঞতাসম্পন্ন কেউ এই ক্যামেরা দিয়ে প্রফেশনাল পর্যায়ের কাজ চালিয়ে নিতে পারবেন। 


৫ । ক্যানন রেবেল এস এল ৩ অল্প বাজেটের অন্যতম ক্যামেরা হচ্ছে রেবেল এস এল ৩।টেকসই বিল্ড এর সাথে আছে দামি ক্যামেরার কিছু গুন। ওজনে বেশ হালকা এবং কম্প্যাক্ট।ডুয়েল পিক্সেলস অটো ফোকাস। ফোরকে ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধা । ২৪.১ মেগাপিক্সেল এপিএস-সি সেন্সর এবং ৯-পয়েন্ট অটো-ফোকাস ব্যবহার করা রয়েছে। ওয়াইফই ব্লুটুথ থাকছেই যা দিয়ে খুব সহজেই ফাইল শেয়ারিং করতে পারবেন ।
*****উপরের এই লেখাগুলি মুছে ফেলুন*****
যেকোনো প্রয়োজনে আমরা আছি
আমাদের ফেইসবুক গ্রুপ bd tech group
ফেইসবুক পেইজ bd tips tech
ইউটিউব চ্যানেল Youtube channel
Read More »

Get post by Email

copyright 2014-2020@bdtipstech DMCA.com Protection Status